September 25, 2022, 2:45 am

শ্রীমঙ্গলে মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের বিরুদ্ধে পাল্টা সংবাদ সম্মেলন

শ্রীমঙ্গলে মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সংবাদ সম্মেলনের প্রেক্ষিতে পাল্টা সংবাদ সম্মেলন করা হয়েছে। মঙ্গলবার (৬ সেপ্টেম্বর) দুপুরে শ্রীমঙ্গল প্রেসক্লাবে উপজেলার রামনগর এলাকার মৃত বারেক মিয়ার ছেলে আবুল কালাম (৭৫) মুক্তিযোদ্ধার পরিবারের উপর পাল্টা অভিযোগ এনে এই সংবাদ সম্মেলন করেন।

 

তিনি সংবাদ সম্মেলনে লিখিত অভিযোগে বলেন,তার এলাকার মৃত ওয়াব উল্লার স্ত্রী ও মৃত মুক্তিযোদ্ধা শহীদ আলমের বোন মনোয়ারা বেগম (৫৫) ও তার মেয়ে শাহানা আক্তার বিগত ২০ বছর থেকে ১৫ শতক ভূমি দখলের মিথ্যা অভিযোগ দিয়ে তার বিরুদ্ধে একের পর এক মামলা দিয়ে হয়রানি করে চলেছেন। মনোয়ারা বেগম তার ভাই মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সন্তান উল্লেখ করে মানুষের সহানুভূতি পেতে ও তার প্রতিষ্ঠিত মাদ্রাসার বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ করে যাচ্ছেন বলে আবুল কালাম অভিযোগে বলেন।

 

তিনি বলেন, মনোয়ারা বেগমের স্বামী ওয়াব উল্লাহ ও তার ভাসুর ছোয়াব উল্লাহ তাদের যৌথ স্বাক্ষরে ১৯৭৬ সালে ৩৬১৩ নং দলিল মূলে এসএ রেকর্ড এর ৪৩ শতক ভূমি থেকে ১৫ কুশ ভূমি বিক্রি করেন ছুরুতুন্নেছা বেগমের নিকট। এভাবে এই ১৫ শতক ভূমি পরবর্তীতে ৫ বার বিক্রি হয়। ৬ষ্ঠ ক্রেতা হিসেবে এই ১৫ শতক ভূমি তিনি ১৯৮২ সালে ৩৪১৪ নং দলিল মূলে জনৈক আনোয়ারা বেগমের নিকট থেকে ক্রয় করেন। এরপর বিআরএস সেটেলমেন্ট জরিপে তার নামে এই ১৫ শতক ভূমি রেকর্ডভুক্ত হয়। এভাবে তিনি তার পরিবার নিয়ে ভূমির উপর বসত ভিটা নিমার্ণ করে বসবাস করে আসলেও বিগত ২০০২ সাল থেকে মনোয়ারা বেগম এই ১৫ শতক ভূমি নিয়ে আদালতে একের পর এক মিথ্যা মামলা দায়ের করে ও সরকারি দপ্তরের বিভিন্ন অভিযোগের জবাব দিতে দিতে তিনি ক্লান্ত ও নি:স্ব হয়ে পড়েছেন বলে অভিযোগ করেন। আবুল কালাম আরও বলেন, মনোয়ারা বেগম বিগত ২০১১ সালে মৌলভীবাজার জুডিসিয়াল আদালতে তার বিরুদ্ধে ৩০১ নং একটি পিটিশন মামলা করলে আদালত তৎকালীন সহকারী কমিশনার (ভূমি) শ্রীমঙ্গল মো.গোলাম মওলাকে সরজমিন অনুসন্ধানী প্রতিবেদন দিতে নির্দেশ প্রদান করেন।

 

তিনি সরজমিন তদন্ত করে আবুল কালামের ক্রয়কৃত ১৫ শতক ভূমির উপর বসবাস করছেন মর্মে আদালতে প্রতিবেদন দেন। কিন্তু মনোয়ারা বেগম এ রিপোর্ট প্রত্যাখ্যান করে ও স্থানীয় শালিসের রায় না মেনে তাকে হয়রানি করছেন বলে সংবাদ সম্মেলনে আবুল কালাম অভিযোগ করেন। এসময় সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন,আবুল কালামের ছেলে মাওলানা আলমগীর হোসেন,এলাকার মসুক মিয়া ও সাদিকুর রহমান।

 

এসব বিষয় জানতে চাইলে শহীদ মুক্তিযোদ্ধা আলমের বোন মনোয়ারা বেগম বলেন আবুল কালাম যে অভিযোগ করেছে
তা সম্পূর্ণ মিথ্যা। আবুল কালাম প্রতারণার মাধ্যমে জাল দলিল তৈরি করে ১৫ শতক জায়গা অবৈধভাবে দখল করে রেখেছে। যা নিয়ে আদালতে মামলা চলমান। তিনি আরো বলেন আমাদের নামে রেকর্ডীয় ও নামজারীকৃত ৭ শতক জায়গা আবুল কালামের দখলকৃত বাড়ির ভেতরে রয়েছে। এই সাত শতক নিয়ে কোর্টে কোন মামলা নেই। মনোয়ারা বেগম অভিযোগ করেন, আমার সাত শতক জায়গার উপর আবুল কালাম পাকা ঘর নির্মাণ করে রেখেছে। আমি বার বার সার্ভেয়ার নিয়ে জায়গা মাপার চেষ্টা করলে স্থানীয় প্রভাবশালীদের নিয়ে আবুল কালাম জায়গা মাপতে বাধা প্রদান করেন। তিনি বলেন আবুল কালাম ভাল করে জানেন জায়গা জরিপ করা হলে সে যে জায়গা অবৈধভাবে দখল করে রেখেছে তা প্রমাণ হয়ে যাবে সেজন্য জায়গা জরিপ করতে দেন না।

উল্লেখ্য গত ৩০ আগষ্ট শ্রীমঙ্গল প্রেসক্লাবে মনোয়ারা বেগম মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের জমি দখল শিরোনামে আবুল কালামের বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন করেন।

 

শ্রীমঙ্গল (মৌলভীবাজা) প্রতিনিধি

নিউজটি শেয়ার করুন


© All rights reserved © seradesh.com
Design, Developed & Hosted BY ALL IT BD