September 25, 2022, 1:17 am

ধুনটে সুলতান হত্যার ঘটনায় ২০ জনের বিরুদ্ধে মামলা

বগুড়ার ধুনটে সুলতান মাহমুদ (৩৫) নামের এক হত্যার ঘটনায় ২০ জনকে আসামি করে একটি হত্যা মামলা দায়ের হয়েছে। নিহতের মা খোদেজা খাতুন বাদী হয়ে এ মামলা দায়ের করেন।

জানা যায়, গত ২০২০ সালের ৩১ জানুয়ারি সন্ধ্যায় একই গ্রামের মোকছেদ আলীর ছেলে কৃষক রজনু মিয়া বাড়ির অদুরে নিজের জমিতে পাওয়ার টিলার দিয়ে জমি চাষ করছিলেন। মাদকের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করায় ওই দিন রাত ৯টায় সুলতান ও তার সহযোগীরা জমির ভেতর রনজুকে কুপিয়ে আহত করে পালিয়ে যায়। পরে স্বজনরা রনজুকে উদ্ধার করে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পথে রাত ১টায় মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় নিহত রনজুর স্ত্রী শিরিনা খাতুন বাদী হয়ে থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করে। ওই মামলার প্রধান আসামী ছিলেন ওই গ্রামের আলতাফ হোসেনের ছেলে সুলতান মাহমুদ। ২০২০ সালের ২১ নভেম্বর থানা পুলিশ অভিযান চালিয়ে ঢাকার কাফরুল থানা এলাকার একটি ভাড়া বাসা থেকে সুলতান মাহমুদকে গ্রেফতার করে কারাগারে পাঠায়। বর্তমানে মামলাটি আদালতে বিচারাধীন রয়েছে। ওই মামলায় সুলতান মাহমুদ জামিনে বেরিয়ে আসেন। এ অবস্থায় গত ১৪ সেপ্টেম্বার ২০২২ বুধবার সন্ধ্যায় রনজু হত্যা মামলার প্রধান আসামী সুলতান মাহমুদ তার বাড়ির পাশের একটি ডোবায় কারেন্ট জাল দিয়ে মাছ ধরছিলেন। এসময় ১০/১২ জন লোক ধারালো অস্ত্র নিয়ে অতর্কিভাবে হামলা চালিয়ে আলতাফ হোসেনের ছেলে সুলতান মাহমুদকে কুপিয়ে হত্যা করে লাশ ডোবার মধ্যে ফেলে রাখে। পরে স্থানীয় লোকজন ডোবার মধ্য থেকে সুলতানের লাশ উদ্ধার করে থানা পুলিশকে খবর দেয়। এ ঘটনায় নিহতের মা বাদি হয়ে ২০ জনকে আসামি করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করে।

নিহতের স্ত্রী বিজলী আকতার জানান, গত আড়াই বছর আগে রনজু নামে এক ব্যক্তিকে হত্যার অভিযোগে দায়েরকৃত মামলায় তার স্বামী সুলতান মাহমুদকে আসামী করা হয়। ওই মামলার জের ধরেই তার স্বামীকে কুপিয়ে হত্যা করেছে প্রতিপক্ষরা।

ধুনট থানার পরিদর্শক (তদন্ত) রাজ্জাকুল ইসলাম বলেন, হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় নিহতের মা মামলা দায়ের করেছে। একজনকে গ্রেফতার করে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। মামলার অন্য আসামিদের গ্রেফতারের জন্য অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

 

কারিমুল হাসান লিখন,ধুনট

নিউজটি শেয়ার করুন


© All rights reserved © seradesh.com
Design, Developed & Hosted BY ALL IT BD